Menu

সর্বশেষ


বাংলাপ্রেস ডেস্ক: নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর প্রথম মৃত্যুর খবর আসে চীন থেকে, চলতি বছরের জানুয়ারিতে। এরপর প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের সংক্রমণ পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। মৃত্যুর মিছিলও দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হয়। ছয় মাস না যেতেই এরই মধ্যে করোনায় বৈশ্বিক মৃত্যু ৫ লাখ ছাড়িয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটির বেশি মানুষ। বৈশ্বিক করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু নিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে জরিপকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ডোমিটার। খবর এএফপি ও বিবিসি।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য বলছে, বিশ্বজুড়ে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১ কোটি ১ লাখ ২৯ হাজার ৯৫৫ জন। আর করোনাজনিত রোগ কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে বিশ্বজুড়ে মারা গেছে ৫ লাখ ২ হাজার ২০৮ জন। বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ থেকে পুরোপুরি সুস্থ হয়েছে ৫৪ লাখ ৯৪ হাজার ৫২২ জন।

চীনে শুরু হলেও করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু দুই ক্ষেত্রেই সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এখন পর্যন্ত বৈশ্বিক আক্রান্ত ও মৃত্যুর এক-চতুর্থাংশই যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৬ লাখ ৬ হাজার ৪৯২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। কভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে মারা গেছে ১ লাখ ২৮ হাজার ২০১ জন। দেশটিতে নতুন করে করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। বিশেষত টেক্সাস, ফ্লোরিডা, ক্যালিফোর্নিয়াসহ দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের জনবহুল অঙ্গরাজ্যগুলোয় করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হতে শুরু করেছে।

১৩ লাখ ১৯ হাজার ২৭৪ জন শনাক্ত হওয়া করোনা রোগী নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পরই রয়েছে ব্রাজিল। দেশটিতে করোনায় গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ৫৭ হাজার ১৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। রাশিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৩৪ হাজার ৪৩৭। মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৯ হাজার ৭৩। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক করোনা রোগী নিয়ে ভয়াবহ চাপের মধ্যে পড়েছে ব্রাজিলের ভঙ্গুর স্বাস্থ্য খাত।

ভারতের করোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। লকডাউনের মেয়াদ বাড়িয়েও সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব হচ্ছে না। দেশটিতে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ৫ লাখ ৩৮ হাজার ৬৮৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনায় ভারতে মারা গেছে ১৬ হাজার ২৬২ জন। ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যায় সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে যুক্তরাজ্য। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত দেশটিতে ৩ লাখ ১০ হাজার ২৫৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৪৩ হাজার ৪১৫ জনের।

আর করোনার সূতিকাগার চীনে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস সংক্রমিত হয়ে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত মারা গেছে ৪ হাজার ৬৩৪ জন। মোট শনাক্তের সংখ্যা ৮৩ হাজার ৫০০। উহানের করোনা পরিস্থিতি সফলভাবে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হলেও চীনের বিভিন্ন প্রদেশে নতুন করে সংক্রমণের চিত্র উঠে আসছে। সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় রাজধানী বেইজিংয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আংশিক লকডাউন ঘোষণা হয়েছে চীনের বিভিন্ন অঞ্চলে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টারের তথ্য বলছে, গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমিত হয়ে ৪ লাখ ৯৯ হাজার ৩০৭ জন মারা গেছে। ওই সময় পর্যন্ত প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের মোট বৈশ্বিক সংক্রমণ দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৬ হাজার ৯৮০।

বিপি/কেজে