Menu

সর্বশেষ


ছাবেদ সাথী: বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি মারা গেছেন। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেনসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ শুধুমাত্র একজন প্রবাসীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে ‘অদ্ভুত শোকবার্তা’ প্রকাশ করে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছেন। গত ৫ এপ্রিল ভোর সাড়ে ৪টায় নিউ ইয়র্কের এলমহার্স্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের সর্ববৃহৎ সামাজিক সংগঠন ‘বাংলাদেশ সোসাইটি’র সভাপতি কামাল আহমেদ। নিউ ইয়র্কে এ সময়ে করোনাভাইরাসে নিহত প্রবাসী বাংলাদেশির সংখ্যা ছিল ৭৬ জন। কিন্তু পররাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল আহমেদের মৃত্যুর ৯ ঘন্টার মধ্যেই শোক জানিয়েছেন। একই দিনে দুপুর ১টা ২৫ মিনিটে নিউ ইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তাদের নাম উল্লেখ করে শোকবার্তাটি প্রকাশ করেন।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি মারা গেলেও শুধু একজন প্রবাসীর জন্য কেন শোকবার্তা পাঠানো হলো এ নিয়ে প্রবাসীদের মাঝে চলছে নানা গুঞ্জন। অনেকেই বলছেন প্রয়াত কামাল আহমেদ ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেন একই এলাকার লোক বলেই শুধুমাত্র তাঁর জন্য দ্রুত শোক প্রকাশ করে বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেছেন। তাহলে অন্যান্য প্রবাসীদের জন্য কী তাঁর কোন দয়ামায়া নেই? মহামারির এই দিনে এমন একটি ‘অদ্ভুত শোকবার্তা’ প্রকাশ করে আঞ্চলিকতাকে প্রাধান্য দিয়েছেন বলেও প্রবাসীরা প্রশ্ন তুলেছেন। তারা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেন কোন এলাকার মন্ত্রী নন, তিনি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তাই তাঁর এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচিত ছিল বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে নিহত সকল বাংলাদেশিদের জন্য শোক জানানো।
বাংলাদেশ সোসাইটি’র সভাপতি কামাল আহমেদের মৃত্যুর প্রকৃত কারণ গোপন করা হয়েছে শোকবার্তায়। করোনাভাইরাসে তাঁর মৃত্যু হলেও নিউ ইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল অত্যন্ত কৌশলে তা গোপন করেন।

নিউ ইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা কর্তৃক প্রেরিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অদ্ভুত শোকবার্তাটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

শোক বার্তা (৫ এপ্রিল, ২০২০)

বাংলাদেশ কমিউনিটির সর্বজন প্রিয়মুখ জনাব কামাল আহমেদ এর মৃত্যুতে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, নিউ ইয়র্ক গভীরভাবে শোকাহত। নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ কমিউনিটির বৃহত্তম আব্রেলা সংগঠন ‘বাংলাদেশ সোসাইটি’র সভাপতি জনাব কামাল আহমেদ আজ ভোর ৪:৩০ ঘটিকায় এলমহার্স্ট হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।

কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা জনাব কামাল আহমেদ এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করে যাচ্ছেন। মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেন,এমপি, যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন এবং জনাব মাসুদ বিন মোমেন, মাননীয় পররাষ্ট্র সচিব জনাব কামাল আহমেদ এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।
জনাব কামাল আহমেদ তাঁর নিজ কর্মগুণে বাংলাদেশী-আমেরিকান কমিউনিটিতে অত্যন্ত প্রিয় এবং শ্রদ্ধাভাজন ছিলেন। তাঁর মৃত্যু সকলের জন্য একটি অপূরণীয় ক্ষতি। প্রবাসীদের কল্যাণে তিনি সবসময় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের সাথে যোগাযোগ রাখতেন এবং সহযোগিতা করতেন। অত্যন্ত অমায়িক, প্রচারবিমুখ ও নিরহংকার ব্যক্তি কামাল আহমেদ দীর্ঘদিন যাবত প্রবাসীদের বিভিন্ন ধরণের সহযোগিতা করেছেন। বাংলাদেশ কমিউনিটিতে মরহুম কামাল আহমেদ এর অবদানের জন্য বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল তাঁকে কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করবে।

বিপি।সিএস