Menu

সর্বশেষ

ভোটকেন্দ্রে হামলার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচার দাবি

বোষ্টনের বেইনে যোগ দেবেন না বিজয়ী ৭ সদস্য


নিজস্ব প্রতিবেদক, বোষ্টন: যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটেস অঙ্গরাজ্যের বোষ্টনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নিউ ইংল্যান্ড (বেইন)-এর দ্বিবার্ষিক নির্বাচন চলাকালীন সময়ে এক প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের হামলায় অপর প্যানেলের একজন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আহতের ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচারাধীন মামলা চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত বিতর্কিত ভোটে নির্বাচিত ৭জন সদস্য বেইনের আগামী পরিচালনা পর্ষদে যোগ দেবেন না বলে জানা গেছে।
গত ৯ নভেম্বর শনিবার দুপুরে মেডফোর্ডের মিষ্টিকভ্যালী এলাকার অ্যান্ড্রু মিডল স্কুলে ভোট চলাকালীন সময়ে অপ্রীতিকর এ ঘটনাটি ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশের সাহায্য চাওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ভোট বন্ধ করে দেয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান ওইদিন ভোট শুরু হয়েছিল সকাল ৯ টায়। দুপুরে ১টার কিছু আগে খোকা–নবী-সামি পরিষদের ক্রীড়া সম্পাদক এসএম সাজ্জাদ হোসেন তার পরিষদের প্রার্থীদের জন্য সবার কাছে শেষবারের মত ভোট কামনা করছিলেন এবং মাঝে মধ্যে তার পরিষদের পক্ষে শ্লোগানও দিচ্ছিলেন। এতে অপর প্যানেল আসিফ-বিপু-রনি পরিষদের কর্মিরা তাকে থামানোর চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে এসে সভাপতি প্রার্থী আসিফ বাবুর স্ত্রী পারভীন চৌধুরীর সাথে তার বাকবিতন্ডা হয়। বিষয়টি স্বামীর কাছে গিয়ে নালিশ করেন পারভীন। ঘটনা শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন আসিফ বাবু।আসিফ তার প্যানেলের অন্যান্য প্রার্থীদের সাথে নিয়ে ছুটে যান সাজ্জাদের কাছে এবং অতর্কিত হামলা শুরু করেন। বেশ কয়েকজন মিলে এলোপাতারি কিলঘুষি মারতে থাকেন সাজ্জাদকে। আহতাবস্থায় সাজ্জাদ অভিযোগ জানাতে ছুটে যান পুলিশ ষ্টেশনে এবং পরে চিকিৎসা নিতে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। উক্ত ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচারাধীন মামলা চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত বিতর্কিত ভোটে নির্বাচিত ৭ সদস্য বেইনের আগামী পরিচালনা পর্ষদে যোগ দেবেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নিচে নির্বাচিত ৭ সদস্যের বিবৃতি তুলে ধরা হলো-

নিউ ইংল্যান্ডে বসবাসরত প্রিয় বাংলাদেশীবৃন্দ
আসসালামুআলাইকুম
আমরা নিম্ন স্বাক্ষরকারীগণ বেইন-এর ২০২০-২১ কর্ম-পর্ষদের সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে বিভিন্ন পদে নির্বাচিত হয়েছি। কিন্তু নানাবিধ অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্খিত ঘটনার প্রেক্ষিতে আমরা জয়ী হয়েও জয়ের আনন্দ উপভোগ করতে পারছি না, উপরন্তু প্রতিদিন নিজেদের ভেতর নিজেরাই মরমে মরমে দগ্ধ হচ্ছি। এবং সে কারণেই কিছু বিষয় আপনাদের সামনে তুলে ধরা অত্যাবশ্যক মনে করছি। কারণ, দিন শেষে,আমাদের সম্মানিত সদস্য/ভোটার, এই আপনাদের কাছেই দায়বদ্ধ।
আমরা প্রথমেই ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই আমাদের খোকা-নবী-সামী প্যানেলের সকল সহযোদ্ধাদের। আমরা বিশেষ ভাবে উল্লেখ করতে চাই সভাপতি প্রার্থী মাহবুব ই খোদা খোকা, আমাদের প্রিয় খোকা ভাইয়ের কথা। যার প্রজ্ঞা, মেধা, ঔচিত্যবোধ, নেতৃত্বগুণ ও ভালোবাসায় আমরা বিমুগ্ধ। যিনি শত অন্যায়ের মাঝেও নিজের সততাকে বিসর্জন দেননি, বিচ্যুত হননি তার ন্যায়পরায়নতা থেকে। খোকা ভাই প্রতি ক্ষনে আমাদের মাথার উপর ছায়া হয়ে সত্যিকার নেতা ও বন্ধুর মতো আমাদেরকে পরিচালিত করেছেন। খণ্ডিত ও প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনে পরাজিত হয়েও যিনি প্রবাসে কমিউনিটির বৃহত্তর স্বার্থে সেই ফলাফল মেনে নিয়েছেন। এবং আমাদেরকেও তা মেনে নিতে অনুপ্রাণিত করেছেন। এবং আমরা সেমতে রাজীও হয়েছি, এবং মেনে নিয়েছি।
আমরা খোকা ভাইকে আমাদের অন্তরের অন্তস্থল থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।
কিন্তু কমিউনিটির সকলের অবগতির জন্য কিছু বিষয় এখানে পরিষ্কার করা আবশ্যক। পুরো কমিউনিটির মতো আমরাও যখন অধীর আগ্রহে একটি সুন্দর নির্বাচনের জন্য অপেক্ষমান, তখন নির্বাচনের দিন,অদক্ষ ও অবিবেচক নির্বাচন কমিশনের একগুঁয়েমীপূর্ণ আচরণের দরুন একটি সুন্দর দিনের অপমৃত্যু হয়েছে। আর তার ফলশ্রুতিতে সাত (৭) শতাধিক ভোটারের ভোটাধিকার লংঘিত হয়েছে, এবং কমিউনিটির সম্মানিত ভোটারবৃন্দ ভোট প্রদানে ব্যার্থ হন। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে অসংখ্য ভোটার ভোট কেন্দ্রের বাইরে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করে ফিরে গিয়েছেন। সম্মানিত ভোটারদের এই অধিকার লংঘন ও অপমানের দায়ভার কে নেবে?
খোকা-নবী-সামী প্যানেলের নির্বাচিত সদস্য হিসেবে আমরা এই অভাবিত ও অনাকাঙ্খিত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি ও সকল ভোটার, যারা ভোট দনে ব্যর্থ হয়েছেন, তাদের সকলের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। বিনম্র চিত্তে স্মরণ করছি তাদের ভালোবাসা ও সমর্থনের কথা। এবং দ্যার্থহীন ভাবে বলতে চাই, আগামীর প্রতিটি দিন যেন আমরা আপনাদের এই ভালোবাসা ও সমর্থন থেকে বঞ্চিত না হই।
আপনাদের আবার ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।
আপনারা সকলেই ইতিমধ্যে জেনেছেন যে, নির্বাচন চলাকালিন, আমাদের এক সহযোদ্ধা, ক্রীড়া সম্পাদক পদের নির্বাচিত সম্পাদক, এস, এম, সাজ্জাদ হোসেইন প্রতিদ্বন্দ্বী প্যানেলের সভাপতি, সহ -সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীর হামলায় শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত হন ও আহত হন। এর প্রেক্ষিতে যে অভাবনীয় পরিস্থিতির উদ্ভব হয় তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমরা হারিয়ে ফেলেছি। বেইনের উৎসবমুখর নির্বাচনের দিনে একজন সভাপতি প্রার্থী, যে কিনা পরবর্তীতে নির্বাচিতও হয়েছেন, তিনি, তার প্যানেলের অন্যান্য সহযোগী মিলে প্রতিদ্বন্দ্বী প্যানেলের প্রার্থীকে শারীরিক ভাবে আক্রমণ করে আহত করেছেন। বিষয়টি অচিন্তনীয়, ও এর দৃষ্টান্ত মূলক সমাধান অত্যাবশক।
আমাদের প্রানপ্রিয় সংগঠন বেইন, যার জন্মের কথা আমাদের দেশের গৌরব উজ্জ্বল স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে এক সাথে উচ্চারিত হয়, সেই সংগঠনের ইতিহাসে ইতিপূর্বে কখনো এ ধরণের কোনো ঘটনার কথা কেউ কল্পনাও করেনি।
সাজ্জাদ হোসেইনের উপর হামলা ও শারীরিক ভাবে লাঞ্ছনার বিষয়টি বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন। এমতাবস্থায়, এই বিচারাধীন বিষয়ের সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত আমরা, খোকা-নবী-সামী প্যানেলের সাত নির্বাচিত প্রতিনিধি, কোনো অবস্থাতেই বেইনের ভবিষ্যত কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারি ন। বিশেষতঃ, যেখানে এই হামলার ঘটনার মূল-হোতাও যুক্ত থাকবেন সেই কার্যক্রমে।
সুতরাং, আমরা পুনরায় দ্যার্থহীন ভাবে সকলকে জানাতে চাই যে, এই বিচারাধীন বিষয়টির সুষ্ঠ ও সম্মানজনক সমাধানের পূর্বে আমরা বেইন-এর পরবর্তী কর্ম-পরিষদের কোনো কাজে অংশ গ্রহণ করবো না। আমরা সকলে আপনাদের সুচিন্তিত ও সহৃদয় দৃষ্টি কামনা করছি।
পরিশেষে, আমরা আপনাদের সকলকে আমাদের অন্তরের অন্তস্থল থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আপনারা ভালো থাকেন, সকলের জীবন হোক মঙ্গলময়।

শুভেচ্ছান্তে,
নিম্ন স্বাক্ষরকারী নব-নির্বাচিত সদস্যবৃন্দ:
ওমর এফ সামী, সাধারণ সম্পাদক
মোহাঃ শহিদুল আলম, কোষাধ্যক্ষ
রেহানা পারভীন,সম্পাদক, সংস্কৃতি
এস, এম সাজ্জাদ হোসেইন, সম্পাদক, ক্রীড়া
সবুজ বড়ুয়া, সম্পাদক, শিক্ষা
খন্দকার আরিফুল হক, সম্পাদক, সমাজ সেবা
ফরহাদ উদ্দিন, সদস্য, কার্যকরী পরিষদ

বিপি/সিএস


এই বিভাগের আরও সংবাদ