Menu

সর্বশেষ


নিজস্ব প্রতিবেদক, বোষ্টন: যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটেস অঙ্গরাজ্যের বোষ্টনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নিউ ইংল্যান্ড (বেইন)-এর দ্বিবার্ষিক নির্বাচন চলাকালীন সময়ে সভাপতি প্রার্থীর হামলায় অপর প্যানেলের এক প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে মেডফোর্ডের মিষ্টিকভ্যালী এলাকার অ্যান্ড্রু মিডল স্কুলে ভোট চলাকালীন সময়ে অপ্রীতিকর এ ঘটনাটি ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশের সাহায্য চাওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ভোট বন্ধ করে দেয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান ওইদিন ভোট শুরু হয়েছিল সকাল ৯ টায়। দুপুরে ১টার কিছু আগে খোকা–নবী-সামি পরিষদের ক্রীড়া সম্পাদক এসএম সাজ্জাদ হোসেন তার পরিষদের প্রার্থীদের জন্য সবার কাছে শেষবারের মত ভোট কামনা করছিলেন এবং মাঝে মধ্যে তার পরিষদের পক্ষে শ্লোগানও দিচ্ছিলেন। এতে অপর প্যানেল আসিফ-বিপু-রনি পরিষদের কর্মিরা তাকে থামানোর চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে এসে সভাপতি প্রার্থী আসিফ বাবুর স্ত্রী পারভীন চৌধুরীর সাথে তার বাকবিতন্ডা হয়। বিষয়টি স্বামীর কাছে গিয়ে নালিশ করেন পারভীন। ঘটনা শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন আসিফ বাবু।আসিফ তার প্যানেলের অন্যান্য প্রার্থীদের সাথে নিয়ে ছুটে যান সাজ্জাদের কাছে এবং অতর্কিত হামলা শুরু করেন। বেশ কয়েকজন মিলে এলোপাতারি কিলঘুষি মারতে থাকেন সাজ্জাদকে। আহতাবস্থায় সাজ্জাদ অভিযোগ জানাতে ছুটে যান পুলিশ ষ্টেশনে এবং পরে চিকিৎসা নিতে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে এ বিষয়টি বেইনের সভাপতির নিকট লিখিতভাবে অভিযোগ করেছেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে,চার ঘন্টার অসমাপ্ত ভোটের পুননির্বাচন দাবি করেছেন বোষ্টন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। তাদের দাবি প্রায় শতাধিক ভোটার কেন্দ্রে ও বাইরে অবস্থান করছিলেন তাদের ভোট প্রদানের জন্য। দু’প্যানেলের মধ্যে হট্টগোল দেখা দেওয়ায় পুলিশ এসে ভোটগ্রহন বন্ধ করে দেয়। অসমাপ্ত ভোট গ্রহনের সুরাহা না করে নির্বাচন কমিশন তাদের মনোপলি সিদ্ধান্তে ভোট গণনা শুরু করেন। ভোট গণনার এ ধরনের সিদ্ধান্ত সংগঠনের সংবিধান বহির্ভূত বলে উল্লেখ করেছেন বেইনের সাবেক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা। তারা বলেন, ভোট গণনার সময় কোন প্রার্থী বা তাদের মনোনীত প্রতিনিধিকে ডাকা হয়নি। শুধুমাত্র তিনজন নির্বাচন কমিশনার ও কেন্দ্রে কর্মরত কয়েকজন বিদেশি নাগরিকদের নিয়ে ভোট গণনা করা হয়। চার ঘন্টা ভোট অসমাপ্ত রেখে গণনার সিদ্ধান্তে যাবার আগে খোকা–নবী-সামি পরিষদ ভোট গণনার মৌখিক সিদ্ধান্তে রাজি হলেও অপর প্যানেল আসিফ-বিপু-রনি পরিষদ রাজি ছিলেন না। তারা জোর আপত্তি তোলেন। এ ধরনের সিদ্ধান্ত তারা মানবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন।কিন্তু তারপরও ইসি ভোট গণনা শেষ করেন। গণনা শেষে তিনি তড়িঘড়ি করে ফলাফল ঘোষনা করেন। ভোট গণনার কোন কাগজপত্রে কোন প্রার্থী বা তাদের প্রতিনিধিদের স্বাক্ষর গ্রহণ করেননি ইসি। অথচ একইদিন রাতে ভোটের চূড়ান্ত ফলাফলের সনদপত্র ঘোষনা করেন ইমেইলের মাধ্যমে। কিসের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন ভোট গণনা ও চূড়ান্ত ফলাফলের সনদপত্র ঘোষনা করেছেন তা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। একই সাথে বোষ্টন প্রবাসী বাংলাদেশিরা চার ঘন্টার অসমাপ্ত ভোটের পুননির্বাচন দাবি করেছেন।
নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক একাধিক ভোটার দাবি করেছেন নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করেননি। শুরু থেকেই তাদের কর্মকান্ড ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। তা নাহলে ভোটকেন্দ্রে হট্টগোলের বিষয়টি পুলিশ আসার আগেই নিজেরাই সমাধান করতে পারতেন। সেটা না করে তারা দাঁড়িয়ে মজা নিয়েছেন। এখনো ৭ শত ভোট প্রদান বাকি রয়েছে আর বর্তমান দু’জন সভাপতি প্রার্থীর ভোটের ব্যবধান রয়েছে মাত্র ৮০টি। চার ঘন্টা পুনভোট না হলে তাদের এ সিদ্ধান্তকে কোন ভাবেই মেনে নেবেন না বোষ্টন প্রবাসী বাংলাদেশি বেইনের ভোটাররা। প্রয়োজনে নির্বাচন কমিশনকে আদালতেও নিয়ে যাবেন।কারন সংগঠনের সংবিধান লংঘন করে নির্বাচন কমিশন তাদের কোন খামখেয়ালি সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। এদিকে ভোট দিতে না পেরে ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত ভোটদানে ব্যর্থ ভোটাররা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তাদের সকলের দাবি অসমাপ্ত চার ঘন্টার ভোট যে কোন দিন পুননির্বাচন করা হোক।

এ বিষয়টি জানতে তিন নির্বাচন কমিশনার, বেইনের সভাপতি নুমান চৌধুরী এবং দু’প্যানেলের সভাপতি প্রার্থীর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয় কিন্তু কাউকেই পাওয়া যায়নি। শেষ ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে বিষয়টি জানতে চাওয়া হলে কেউ কোন উত্তর দেননি।

বিপি।সিএস


এই বিভাগের আরও সংবাদ