Home আন্তর্জাতিক নিউ ইয়র্কবাসীদের ৮৩ বছর পর্যন্ত বাঁচিয়ে রাখার পরিকল্পনা সিটি মেয়রের

নিউ ইয়র্কবাসীদের ৮৩ বছর পর্যন্ত বাঁচিয়ে রাখার পরিকল্পনা সিটি মেয়রের

by bnbanglapress

মিনারা হেলেন: প্রত্যেক নিউ ইয়র্কবাসীকে ৮৩ বছর পর্যন্ত বাঁচিয়ে রাখার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামস। ২০৩০ সাল নাগাদ নিউ ইয়র্কবাসীর গড় আয়ু বৃদ্ধি করার লক্ষে নগরবাসীর জীবনমান উন্নয়নের উচ্চাভিলাষী প্রচারাভিযান শুরু করেছেন নগর কর্তৃপক্ষ। ‘হেলদিএনওয়াইসি’ নামের এই পরিকল্পনাটি গত ১ নভেম্বর উন্মোচন করেছেন নিউ ইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক অ্যাডামস এবং নিউইয়র্ক সিটি ডিপার্টমেন্ট অফ হেলথ অ্যান্ড মেন্টাল হাইজিন (ডিওএইচএমএইচ) এর কমিশনার ডক্টর অশ্বিন ভাসান।
‘হেলদিএনওয়াইসি’ এর লক্ষ্য হলো ২০৩০ সালের মধ্যে নিউইয়র্কবাসীর গড় আয়ু ৮৩ বছর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা, ডায়াবেটিসের মতো দীর্ঘস্থায়ী বিভিন্ন রোগ, ওষুধের ওভারডোজ, মাতৃমৃত্যুর হার, অকাল মৃত্যু এবং আরও অনেক কিছু কমানোর উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করা। প্রচারাভিযানে দীর্ঘস্থায়ী ও খাদ্য-সম্পর্কিত রোগ, নিরাময়যোগ্য ক্যান্সার, অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবন, আত্মহত্যা, মাতৃমৃত্যু, সহিংসতা এবং কোভিড-১৯ সহ অকাল মৃত্যুর সবচেয়ে বড় কারণগুলো মোকাবেলা করার জন্য উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। সামগ্রিকভাবে, প্রচারণার লক্ষ্য বর্ণগত ও জাতিগত গোষ্ঠীগুলোর উপকারসহ ২০৩০ সালের মধ্যে নিউইয়র্কবাসীর গড় আয়ু ৮৩ বছর পর্যন্ত বাড়ানো।
হেলদিএনওয়াইসি পরিকল্পনার লক্ষ্য হলো কোভিড-১৯ মহামারি চলাকালীন ভাইরাস এবং অন্যান্য কারণে হারিয়ে যাওয়া জীবনের বছরগুলোকে মোকাবেলা করা এবং প্রাক-মহামারির আয়ুকে অতিক্রম করা। ২০১৯ এবং ২০২০ সালের মধ্যে মানুষের গড় আয়ু ৭৮ বছরে নেমে এসেছিল। সাম্প্রতিক ডেটা থেকে জানা যায়, নিউইয়র্ক সিটিতে আয়ু উন্নতি হতে শুরু করেছে, ২০২০ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে ২.৭ বছর ফিরে এসেছে। তবে আয়ু এখনো ২০১৯ সালের ডেটার পিছনে রয়েছে। এই প্রভাবগুলোও সমানভাবে অনুভূত হয়নি। কারণ ২০২১ সালে কৃষ্ণাঙ্গ নিউইয়র্কবাসীর গড় আয়ু ৭৬.১ বছরে নেমে আসে; অন্যদিকে ওই সময় শ্বেতাঙ্গ নিউইয়র্কবাসীর গড় আয়ু ছিল ৮১.৮ বছর।
মেয়র অ্যাডামস বলেন, ‘এখন হেলদিএনওয়াইসি চালু করার মাধ্যমে নিউইয়র্ক সিটিকে অতিরিক্ত জীবন দেওয়ার সময় এসেছে। আমাদের প্রচারাভিযানের লক্ষ্য নিউইয়র্কবাসীকে স্বাস্থ্যকর ও দীর্ঘ জীবনযাপনে সহায়তা করা। আমাদের প্রশাসন ২০৩০ সালের মধ্যে নিউইয়র্কবাসীর গড় আয়ু ৮৩ বছরের বেশি করার পরিকল্পনা করছে- যা মহামারি চলাকালে হারানো বছরগুলো পুনরুদ্ধার করার পাশাপাশি দীর্ঘস্থায়ী রোগ, সহিংসতা, মাতৃমৃত্যু, অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবন এবং আরও অনেক কিছু মোকাবেলা করে আমাদের আগের উচ্চতাকেও ছাড়িয়ে যাচ্ছে। আমাদের জনস্বাস্থ্যের কাজগুলো মানুষের দীর্ঘ জীবন বাঁচাতে সাহায্য করার লক্ষ্যকে কেন্দ্র করে। আমরা একটি স্বাস্থ্যকর, আরও সমৃদ্ধ শহর গড়ে তুলব যেখানে সবাই উন্নতি করতে পারে।
স্বাস্থ্য ও মানব পরিষেবার ডেপুটি মেয়র অ্যান উইলিয়ামস-ইসম বলেন, ‘ হেলদিএনওয়াইসি হলো নিউইয়র্কবাসীর আয়ু বাড়াতে সাহায্য করার জন্য শহরের একক সংগঠিত প্রচেষ্টা। আমরা হারিয়ে যাওয়া বছর এবং হারিয়ে যাওয়া জীবনের অন্তর্নিহিত কারণগুলো মোকাবেলা করব, যার মধ্যে রয়েছে ওপিওড সংকটের বিরুদ্ধে লড়াই করা, মাতৃমৃত্যু এবং অসুস্থতা হ্রাস করা, খাদ্য-সম্পর্কিত দীর্ঘস্থায়ী রোগগুলোকে উপশম করা এবং প্রতিটি নিউইয়র্কবাসীকে তাদের স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনে সহায়তা করা। আমরা এসব করি কারণ স্বাস্থ্যই আমাদের আরও বেশি বাঁচতে এবং নিজের ও পরিবারের জন্য আরও বেশি ভালবাসতে দেয়।’
ডিওএইচএমএইচ কমিশনার ডা. ভাসান বলেন, হেলদিএনওয়াইসি হলো একটি গেম চেঞ্জার। কারণ কোভিড-১৯ এর সময় আমরা দেখেছি মানুষ আকস্মিকভাবেই অসুস্থ হয়েছে, আবার আকস্মিকভাবেই মরে গেছে। জীবনের বছর ও সুস্বাস্থ্য হারানো একটি ঐক্যবদ্ধ চ্যালেঞ্জ এবং সেগুলো ফিরিয়ে আনা নিউইয়র্ক সিটির জন্য একটি শীর্ষ অগ্রাধিকার।
এই ঘোষণাটি দীর্ঘতর, স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনের জন্য আমাদের সম্মিলিত মিশনের স্থানাঙ্ক সেট করে এবং আমাদের সমাজ ও গণতন্ত্রের স্বাস্থ্যের জন্য সম্ভবত এর চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পরিমাপ আর নেই। আমরা নিউইয়র্ক সিটিতে যে পথ পাড়ি দিচ্ছি তা আমাদের দেশ ও জনগণের জন্য দিকনির্দেশনা সরবরাহ করবে।

বিপি।এসএম

You may also like

Leave a Comment

আমাদের সম্পর্কে

যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত বৃহত্তম বাংলা অনলাইন সংবাদপত্র

Feature Posts

Newsletter