Menu

সর্বশেষ
সর্বশেষ


বাংলাপ্রেস ডেস্ক: এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে প্রাণ হারানো শহীদ নূর হোসেনকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য সবার কাছে ক্ষমা চাইলেন জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা।

সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের টকশোতে অংশ নিয়ে বক্তব্যের এক পর্যায়ে তিনি সবার কাছে ক্ষমা চান।

এ সময় রাঙ্গা বলেন, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ মারা যাওয়ার পরও তাকে যেভাবে অপমান করা হয়, সে ক্ষোভ থেকেই বিতর্কিত কিছু শব্দ ব্যবহার করে ফেলেছিলাম আমি।

এ সময় তিনি প্রশ্ন তোলেন, এক সঙ্গে জোট করে এরশাদকে স্বৈরাচার বলা কতটা যৌক্তিক। এ বিষয়ে বিহিত করতে শিগগিরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ চাইবেন তিনি।

জাপা মহাসচিব বলেন, এরশাদ সাহেব মারা যাওয়ার পরও তাকে যেভাবে আওয়ামী লীগ থেকে অপমান করা হয়, সেটা মেনে নেয়া যায় না।

এর আগেও এক সাক্ষাৎকারে নূর হোসেনকে নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য তার পরিবারের নিকট ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি দুঃখ প্রকাশ করেন রাঙ্গা। বলেন, নূর হোসেন মাদকাসক্ত ছিলেন না, মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। আমি এই শব্দ দুটি প্রত্যাহার করে নিলাম।

গত রোববার (১০ নভেম্বর) রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে মহানগর উত্তর শাখা আয়োজিত দলের ‘গণতন্ত্র দিবস’র এক আলোচনা সভায় স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের অগ্নি শিখা রূপি নূর হোসেনকে ‘ইয়াবাখোর, ফেনসিডিলখোর’বলে মন্তব্য করেন দলটির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা।

তার এমন বক্তব্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে। রাঙ্গার এমন বক্তব্যে হতবাক হয় নূর হোসেনের পরিবারও। তার এমন বক্তব্যে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে গতকাল সোমবার প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নেয় নূর হোসেনের পরিবার। তার মা মরিয়ম বেগম রাঙ্গাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানালে গণমাধ্যমের সামনে ক্ষমা চান এ রাজনীতিবিদ।

এদিকে, ৯০-এর গণআন্দোলনে শহীদ নূর হোসেনের আত্মত্যাগকে কটাক্ষ ও বিকৃত করায় রাঙ্গাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সোমবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জেড আই খান পান্না এ নোটিশ পাঠান।

নোটিশে রাঙ্গার বক্তব্য অবমাননাকর উল্লেখ করে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমার চাইতে বলা হয়। অন্যথায় তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয়।

বিপি/কেজে


Leave a Comments

avatar
  Subscribe  
Notify of

এই বিভাগের আরও সংবাদ