Menu

সর্বশেষ
সর্বশেষ


বাংলাপ্রেস ডেস্ক: মেক্সিকো-যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তে বন্দুকধারীদের গুলিতে মার্কিন মর্মন সম্প্রদায়ের একটি পরিবারের ছয় শিশু ও তিন নারীসহ ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, হামলায় ১২ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

ওই সীমান্ত এলাকা দিয়ে গাড়ি করে যাওয়ার সময় মেক্সিকোর মাদকচক্রের বন্দুকধারীরাই চোরাগোপ্তা হামলা চালিয়ে পরিবারটির সদসদেরকে হত্যা করেছে বলে দেশটির সরকারি কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) নিশ্চিত করেছে।

সরকারের পক্ষ থেকে হামলায় পাঁচজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হলেও রয়টার্সকে ৯ জন নিহত হওয়ার কথা জানান অ্যালেক্স লেবারন ও জুলিয়ান নামে নিহতদের পরিবারের দুই সদস্য।

এদিকে বিবিসি জানায়, নিহতরা সবাই লেবারন পরিবারের সদস্য। মর্মন সম্প্রদায়ের এ লেবারন পরিবারটি কয়েক দশক আগে নিজেদের এলাকা ছেড়ে মেক্সিকোতে গিয়ে বসাবস করতে শুরু করে।

পরিবারটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সোমবার তাদের পরিবারের তিনজন নারী তাদের ১৪ সন্তানকে নিয়ে দু-তিনটি গাড়িতে করে মার্কিন সীমান্তবর্তী সোনোরা রাজ্যের বাভিস্পে থেকে পাশের রাজ্য চিহুয়াহুয়ার জানোসে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যেই পরিবারটির ওপর চোরাগোপ্তা হামলা হয়।

অ্যালেক্স লেবারন নামে ওই পরিবারে এক সদস্য সিএনএনকে জানান, হামলায় তিনটি গাড়িই লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়। যাতে প্রাণ হারায় তিন নারী, চারটি ছোট ছোট শিশু এবং দুটি বাচ্চা।

সিএনএন-এ প্রকাশিত একটি ভিডিওতে ঘটনাস্থলের একটি পোড়া গাড়ি দেখা যায়। হামলাকারীরা গুলির পাশাপাশি হয়তো গাড়িতেও আগুন ধরিয়ে দেয়। যাতে নিহতদের কেউ কেউ হয়তো জীবন্ত অবস্থাতেই দগ্ধ হয়েছেন।

অন্যদিকে, স্থানীয় একটি গণমাধ্যমের খবরে নিহতের সংখ্যা ১২ হতে পারে বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। ফলে মৃতের সংখ্যা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিহুয়াহুয়া রাজ্যের এটর্নি।

এর আগে গত মাসে মেক্সিকোর পশ্চিমাঞ্চলীয় মিশোকান রাজ্যে এক হামলায় ১৩ পুলিশ সদস্য নিহত হয়।

বিপি/কেজে


Leave a Comments

avatar
  Subscribe  
Notify of