সাত সমুদ্দুর তেরো নদীর ওপারে গুরু-শিষ্যের দেখা



নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি: সাত সমুদ্দুর তেরো নদীর ওপারে প্রায় এক যুগ পর হঠাৎ দেখা মিলল সঙ্গীতাঙ্গনের দুই গুরু-শিষ্যের। দেশের প্রখ্যাত লালনগীতির শিল্পী চন্দনা মজুমদার এবং তাঁর ছাত্রী লালন ও সমকালীন সঙ্গীতশিল্পী কৌশলী ইমার হঠাৎ দেখা হয়। গত ১ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যের একটি

সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গুরু-শিস্যের দেখা মেলে। প্রায় এক যুগ পর দু'জনের হঠাৎ দেখা হওয়ায় তাঁরা আবেগাপ্লুত হয়ে একে অন্যকে জড়িয়ে ধরেন।
ঢাকা সরকারি সঙ্গীত মহাবিদ্যালয়ে লোকসঙ্গীত বিভাগের ছাত্রী ছিলেন কৌশলী ইমা। প্রায় ১৫/১৬ বছর আগের কথা। ওই সময় তিনি ব্যক্তিগত ভাবেও গান শিখেছিলেন দেশের প্রখ্যাত লালনগীতির শিল্পী চন্দনা মজুমদার ও তাঁর সহধমী কিরণ চন্দ্র রায়ের কাছে। কেউ ভোলেননি তাদের সেই স্মৃতি। প্রায় এক যুগ পর সাত সমুদ্র তের নদীর ওপাড়ে হঠাৎ দেখা হওয়ায় গুরু চন্দনা মজুমদার ও শিষ্য কৌশলী ইমা দু'জনেই স্মৃতি রোমন্থন করেন।
চন্দনা মজুমদার মূলত লালন-সংগীত এর শিল্পী। কুষ্টিয়ার গড়াই নদীর পাড়ে তাঁর জন্ম। বাবা নির্মলচন্দ্র মজুমদার লালনগীতির শিল্পী হলেও তিনি চেয়েছিলেন নজরুলগীতি করুক চন্দনা।
কিন্তু কুষ্টিয়া, পারিবারিক পরিবেশ আর ফরিদা পারভীনের গান তাঁকে নিয়ে আসে লালনের সুরে। লালনের বাইরে রাধারমণ, হাসনরাজা, শাহ্‌ আবদুল করিম আরও বিভিন্ন গীতিকবির গান করেন তিনি। এছাড়া কিছু চলচ্চিত্রেও গান গেয়েছেন চন্দনা মজুমদার ।
এর মাঝে ‘মনপুরা’ চলচ্চিত্রের একটি গান অনেক পরিচিতি পায় এবং তাঁকে এনে দেয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। তাঁর সহধর্মী কিরণ চন্দ্র রায়ও বাউল গানের শিল্পী। তাই গানের ব্যাপারে তাঁদের বোঝাপড়াটা বেশ ভালো।
অপর দিকে, কৌশলী ইমার জন্ম দিনাজপুরের পার্বতীপুরে। বাবা আব্দুল করিম পেশায় একজন প্রকৌশলী হলেও দুই ছেলে ও চার মেয়েকে সম্পৃক্ত রেখেছিলেন সাংস্কৃতিক চর্চার মধ্যে।
প্রায় দশ বছর ধরে প্রবাসী সমকালীন সংগীতশিল্পী কৌশলী ইমা যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজের মঞ্চে অবৈধ অভিবাসীদের সুখ-দুঃখ নিয়ে জীবনমুখী গান গেয়ে যাচ্ছেন। এক কোটি ১০ লাখ অবৈধ অভিবাসীদের নিয়ে তিনিই প্রথম বাংলা গান গেয়েছেন। তাঁর গানের কথা এরকম-কথায় কথায় শুনি গাল/লোকে বলে  ইল্লিগ্যাল/ শুনলে ভীষন কষ্ট পাই/লিগ্যাল হতে চাইরে বন্দু। লিগ্যাল হতে চাই।
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রাথমিকভাবে ৪৭ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে বৈধতার ঘোষণা দেওয়ায় প্রবাসী সমকালীন সংগীতশিল্পী কৌশলী ইমা তাঁর গাওয়া গানের সার্থকতা খুঁজে পান বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রে এক কোটি ১০ লাখ অবৈধ অভিবাসী রয়েছে। তাদের মধ্যে ৪৪ লাখ অবৈধ অভিবাসী বৈধতার সুযোগ পাবে, যাদের সন্তান যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। আর তিন লাখ অবৈধ অভিবাসী বৈধতার সুযোগ পাবে নতুন নিয়ম অনুযায়ী অন্যান্য শ্রেণিভুক্তির কারণে। তিনি ওবামার এই অভিবাসন পরিকল্পনা ঘোষণাকে ঐতিহাসিক পদক্ষেপ হিসেবেও অভিহিত করেন। বর্তমান ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামানায় যুক্তরাষ্ট্রের অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণের বিষয়টি কতটুকু বাস্তবায়ন হবে সে বিষয়টি নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন শিল্পী কৌশলী ইমা।
তিনি সমাজের নানা অনিয়ম-দুর্নীতি, অন্যায়-অবিচার ও কুসংস্কারকে গানের ভাষায় দর্শক-শ্রোতাদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেন। রাজনীতির নামে নেতা-নেত্রীদের ভণ্ডামি, রাজাকারদের বিচারের দাবি, নারী-পুরুষে বৈষম্য এবং অবৈধ অভিবাসীদের সুখ-দুঃখসহ নানা সমকালীন বিষয়ে গান গেয়েছেন। তার গাওয়া গান শুনে দর্শক-শ্রোতার হৃদয় ছুঁয়ে যায়। তিনিই প্রথম রাষ্ট্রীয় মর্যাদা থেকে বঞ্চিত, অবহেলিত ও ভিক্ষে করে খাওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে গান গেয়েছেন। মুক্তিযুদ্ধ, রাজনীতি, দেশপ্রেম, মানবপ্রেম ও আধ্যাত্মিক বিষয় নিয়ে তার গাওয়া গান সর্বমহলে প্রশংসিত। সমসাময়িক বিষয় এবং জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যুভিত্তিক তার বৈচিত্র্যময় গান ইতিমধ্যে দেশ ও বিদেশে বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন। দেশে অবস্থানকালে গান গেয়েছেন বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনে। তিনি ঢাকা সরকারি সংগীত মহাবিদ্যালয় থেকে লোকসংগীতে স্নাতক এবং লালমাটিয়া মহিলা কলেজ থেকে বাংলা সাহিত্যে মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন। তার বৈচিত্র্যময় গানের সংকলন নিয়ে আমলনামা ডটকম, মাটির মানুষ ও জেন্টেলম্যান নামে ৩টি অ্যালবাম বের হয়েছে। তরুন প্রজন্মের এ শিল্পী ইতিমধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ও সমকালীন গান গেয়ে উত্তর আমেরিকায় ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছেন।