ভৈরব আবাসিক হোটেল থেকে ১১ নারী-পুরুষ আটক

ইউসুফ পাঠান, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ): কিশোরগঞ্জের ভৈরব শহরের একটি আবাসিক হোটেল থেকে আজ মঙ্গলবার সকালে ১১ নারী-পুরুষকে আটক করেছে

পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। যৌন ব্যবসা করার দায়ে তাঁদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে হোটেলটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

ডিবি পুলিশ ও ভ্রাম্যমাণ আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,  আজ সকালে ডিবি পুলিশের  পরিদর্শক মো. মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে কিশোরগঞ্জ ডিবি পুলিশের একটি দল ভৈরব বাজার নদীরপাড় এলাকার হোটেল শৈবালে অভিযান চালায়। এ সময় যৌনকর্মী দুলা, নার্গিস, ঊর্মি ও রোজি, খদ্দের খোকন, হৃদয়, আনোয়ার ও ইউনুস, হোটেলের ব্যবস্থাপক মফিজ, কর্মচারী রতন ও জালালকে আটক করে ডিবি পুলিশ। পরে তারা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দিলরুবা আহমেদকে খবর দেন। ইউএনও ভৈরব থানার পুলিশ নিয়ে সেখানে হাজির হন এবং ঘটনার সত্যতা যাচাই করেন। এরপর আটক নারী-পুরুষদের উপজেলা সদরে ইউএনওর কার্যালয়ে নিয়ে যায় পুলিশ। দুপুরে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসান দিলরুবা আহমেদ।

দিলরুবা আহমেদ জানান, আটক ব্যক্তিরা ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে নিজেদের দোষ স্বীকার করেছেন। এজন্য চার যৌন কর্মী ও চার খদ্দেরকে এক সপ্তাহ করে বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ এবং হোটেলের ব্যবস্থাপক মফিজকে ছয় মাস, কর্মচারী জালাল ও রতনকে তিন মাস করে কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। পরে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।